এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম ও কোড ২০২৩

ইমারজেন্সি ব্যালেন্স আমাদের যখন তখন প্রয়োজন হতে পারে। যেকোনো দিন যেকোনো সময় হঠাৎ করে এর প্রয়োজনীয়তা আমরা অনুভব করি। এর প্রয়োজনীয়তা আমরা তখন ঐ অনুভব করি যখন আমাদের মোবাইল ব্যালেন্স এর মূল ব্যালেন্স শেষ হয়ে যায় এবং গুরুত্বপূর্ণ কাজ সামনে চলে আসে। ইচ্ছা থাকা সত্বেও আমরা নানান কারণে মোবাইলে ব্যালেন্স রিচার্জ করতে পারিনা। ঠিক সে সময় প্রয়োজন হয় ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এবং বাংলাদেশে দারুন একটি সিস্টেম চালু রয়েছে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স হিসেবে।

গ্রাহকগণ ইচ্ছে করলেই মোবাইল অপারেটর হতে নির্দিষ্ট পরিমাণ ইমারজেন্সি ব্যালেন্স বা ঝটপট ব্যালেন্স নিতে পারবেন। এটি মূলত ধার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সম্পন্ন হয় যেটি পরবর্তী রিচার্জের মাধ্যমে পরিশোধ হয়। বাংলাদেশের অন্যতম মোবাইল কোম্পানি হিসেবে এয়ারটেলের ইমার্জেন্সি সার্ভিস রয়েছে। এয়ারটেলের অনেক গ্রাহক রয়েছেন যারা এয়ারটেলের ইমার্জেন্সি সার্ভিস সম্পর্কে জানেন না। অনেকে আছেন এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নিতে পারেন কিন্তু সেটা চেক করতে পারেন না যার কারণে সেটা সঠিক ব্যবহার করতে পারি না। আমরা আজকে এয়ারটেল ব্যালেন্স এর ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম টি আপনাদের সামনে তুলে ধরবো এবং আপনাদের বোঝানোর চেষ্টা করব কিভাবে এটি কার্যকর করতে হয়।

আপনারা যারা ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর ব্যালেন্স চেক কোড জানতে আগ্রহী কিন্তু জানতে পারছেন না তাদের জন্য এটি হচ্ছে সঠিক একটি জায়গা। আমরা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন তথ্য নিয়ে আসার চেষ্টা করি। নতুন তথ্যগুলো যথাযথ সঠিক দেওয়ার চেষ্টা করি। পাঠকগণ আমাদের এই সঠিক তথ্য ব্যবহার করে যেন আজ তার সঙ্গে তাদের কাজ সম্পাদন করতে পারে।

আজকে আমরা এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর ব্যালেন্স চেক কোড টি আপনাদের জানাব যাতে করে ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার পর আপনারা সেটির মাধ্যমে বারবার ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর ব্যালেন্স চেক করে যথাযথ ব্যবহার করতে পারেন। তাহলে শুরু করা যাক এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর ব্যালেন্স চেক করার কোড সম্পর্কে।

এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর ব্যালেন্স চেক করার কোড

ইমারজেন্সি ব্যালেন্স নেওয়ার পরে আপনি যদি সেই ব্যালেন্স চেক করতে চান তাহলে আপনাকে আপনার মোবাইলের ডায়াল অপশনে গিয়ে ডায়াল করতে হবে।

  • *778# এই কোডটি ডায়াল করলে আপনি আপনার এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর টাকার ব্যালেন্স দেখতে পাবেন।
  • এছাড়াও আপনি *1# এই কোডটি ডায়াল করে আপনার এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর সকল ব্যালেন্স দেখতে পাবেন।
  • আপনি যদি এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর ইন্টারনেট প্যাক এর মেয়াদ ব্যালেন্স দেখতে চান তাহলে *8444*88# এই কোড টি ডায়েল করুন।
  • আপনি ইচ্ছে করলে *3# এই কোড ডায়েল করে আপনার এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর ব্যালেন্স চেক করে নিতে পারেন।

উপরে উল্লেখিত কোডগুলি হচ্ছে এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স চেক কোড। অনেকেই এই কোডগুলি না জানার কারণে অনেক ঝামেলায় পড়েছেন। আপনারা যদি আমাদের পোস্ট টি ভালোভাবে পড়েন তাহলে হয়তো এর পরবর্তী সময়ে আর এই ঝামেলায় পড়বেন না। এই তথ্যগুলো অনেক উপকারী হয়ে থাকে যেগুলো সচরাচর পাওয়া যায় না। আমরা চেষ্টা করি প্রতিনিয়তই সঠিক তথ্য আপনাদের সামনে তুলে ধরা। আমরা এই সকল তথ্য গুলো এয়ারটেল এর অফিসের ওয়েবসাইট হতে আপনাদের সামনে নিয়ে এসেছি। আশা করি আপনারা উপকৃত হবেন।

এখন আমরা একটি এয়ারটেল  ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর মিনিট বান্ডেল অফার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করতে যাচ্ছি।  এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স হিসেবে মিনিট বান্ডেল প্যাক দেয় কিন্তু অন্যান্য অপারেটরগুলো সেটি দেয় না। তাই এয়ারটেল গ্রাহক হিসেবে আপনি একটি আলাদা কিছু বা বেশি কিছু পেয়ে যাচ্ছেন। আমরা নিজেই চেষ্টা করব এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর মিনিট বান্ডেল অফার গুলো আপনাদের বুঝিয়ে বলার।

এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর মিনিট বান্ডেল প্যাক

  • 5 মিনিট বান্ডেল প্যাক

আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না যে এয়ারটেল ইমারজেন্সি ব্যালেন্স হিসাবে দিচ্ছে 5 মিনিট বান্ডেল প্যাক। এই বান্ডেল প্যাক টির মূল্য 5 টাকা। এই প্যাক টির মেয়াদ থাকবে 4 ঘন্টা। এই প্যাক টির মূল্য আপনি পরবর্তীতে রিচার্জের মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারবেন।

  • 10 মিনিট বান্ডেল প্যাক

এয়ারটেল দিচ্ছে তাদের গ্রাহকদের জন্য একটি বিশেষ এমার্জেন্সি প্যাক। ইমার্জেন্সি প্যাক টি হল 10 মিনিট বান্ডেল প্যাক। এয়ারটেল 10 মিনিট ইমারজেন্সি বান্ডেল প্যাক টি দিচ্ছে শুধুমাত্র 8 টাকা। এই বান্ডেল প্যাক মেয়াদ থাকবে 5 ঘন্টা। তাই আপনার যদি প্রয়োজন হয় এই বান্ডেল প্যাক নিতে পারেন। পরবর্তী রিচার্জের মাধ্যমে আপনার কাছ থেকে  বান্ডেল প্যাক এর মূল্য কেটে নেয়া হবে।

  • এয়ারটেল 15 মিনিট ইমারজেন্সি বান্ডেল

এয়ারটেল থেকে ইমারজেন্সি বান্ডেল প্যাক হিসাবে 15 মিনিট নেওয়া যায় এই কথাটি অনেকেই জানেন না। 15 মিনিট ইমারজেন্সি প্যাক নিতে হলে আপনার সর্বমোট খরচ হবে 13 টাকা। মিনিট বান্ডেল এর মেয়াদ থাকবে 16 ঘন্টা। পরবর্তী রিচার্জের মাধ্যমে আপনার মূল্য পরিশোধ করা হবে।

  • এয়ারটেল 25 মিনিট ইমারজেন্সি বান্ডেল

শুধু মাত্র 20 টাকা তে এয়ারটেল দিচ্ছে 25 মিনিট ইমারজেন্সি বান্ডেল প্যাক। এটির জন্য আপনাকে আগে কোন টাকা দিতে হবে না। বা আপনার ব্যালেন্সে কোন টাকা রাখার প্রয়োজন নেই। আপনি লোনের মাধ্যমে এই 20 টাকা তে 25 মিনিট বান্ডেল যার মেয়াদ 24 ঘন্টা নিতে পারেন।

  • 35 মিনিট ইমারজেন্সি বান্ডেল

ইমারজেন্সি ব্যালেন্স হিসেবে 35 মিনিট বান্ডেল পাওয়াটা অনেক বড় একটি ব্যাপার। আমরা ইচ্ছে করলেই এই অফারটি নিতে পারিনা। একজন এয়ারটেল গ্রাহক  যদি এই অফারটি পাওয়ার যোগ্য হয় তাহলে এই ইমার্জেন্সি প্যাকটি নিতে পারবে। ইমারজেন্সি প্যাকটির মূল্য 26 টাকা যার মেয়াদ 24 ঘন্টা।

  • 50 মিনিট ইমারজেন্সি বান্ডেল প্যাক

ইমারজেন্সি বান্ডেল প্যাক হিসেবে এয়ারটেল গ্রাহকগণ পেতে পারেন 50 মিনিট বান্ডেল প্যাক। আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী যদি আপনি এটি পেয়ে যান তাহলে আপনাকে এটার জন্য সর্বমোট খরচ করতে হবে 36 টাকা। যেটা কিনা প্রথমত ধার হিসেবে থাকবে এবং পরবর্তী রিচার্জ গুলোর মাধ্যমে পরিশোধ করে নেওয়া হবে। এই প্যাকটির মেয়াদ 2 দিন।

  • 75 মিনিট ইমারজেন্সি বান্ডেল প্যাক

এয়ারটেল দিচ্ছে সকল অপারেটরদের মধ্যে সর্ব সেরা ইমারজেন্সি বান্ডেল প্যাক। এই প্যাক টি তে রয়েছে 75 মিনিট যা অনেক বড় একটি মিনিট প্যাক। এই প্যাক টির মেয়াদও অনেক বেশি ,7 দিন মেয়াদের এই প্যাকটি নিতে এয়ারটেল গ্রাহকগণকে 53 টাকা লোন হিসেবে খরচ করতে হবে। এই 53 টাকা লোন পরবর্তী রিচার্জ গুলোর মাধ্যমে এয়ারটেল আপনার থেকে কেটে নিবে।

যারা এয়ারটেলের ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স হিসাবে মিনিট প্যাক গুলো নিতে আগ্রহী তারা অবশ্যই আমাদের উপরের অংশটুকু খুব ভালোভাবে পড়বেন। শুধুমাত্র এয়ারটেল গ্রাহক গুলোই এই অফার গুলো পেতে পারবেন। এয়ারটেল গ্রাহকরা এ বিশেষ অফার গুলো পাবেন, তবে কে কোন অফার পাবেন সেটা নির্ধারণ করা হবে সেই গ্রাহকের ব্যবহৃত মূল ব্যালেন্সের উপর গ্রাহকগণ পুরো মাসে যে পরিমাণ টাকা খরচ করেন সেই টাকার অনুপাত হারেই এই এয়ারটেল মিনিট প্যাক গুলো গ্রাহকদের দেওয়া হয়।

যোগ্যতা অনুযায়ী আলাদা আলাদা ভাবে এই প্যাকগুলো বন্টন করা হয়। তবে একটা জিনিস খুব ভালোভাবে খেয়াল রাখবেন। যেহেতু এটি একটি ধার প্রক্রিয়া তাই সবকিছু জেনেশুনে অবশ্যই ধার নিবেন এবং সেটি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পরিশোধ করে রাখবেন। তা না হলে এমন সময় আসবে যে আপনার আবারো জরুরী প্রয়োজন হয়েছে কিন্তু পূর্বের ধার পরিশোধ না করায় আপনাকে পুনরায় আবার ধার দেয়া হবে না। আপনার ধার পরিশোধ হতে দেরি করলেও আপনি যেদিন ধার টি সম্পূর্ণরূপে পরিশোধ করবেন সেদিন হতে আপনি আবার পুনরায় ধার করতে পারবেন। আপনি যতবার ইচ্ছে ততবার এই ভাবেই ধার করতে পারবেন।

আজকের মতন এই ছিল আমাদের ইমারজেন্সি ব্যালেন্স এর ব্যালেন্স চেক করার কোড। আমরা যতটুকু পেরেছি আপনাদের তথ্য গুলো দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করেছি। আমাদের পোষ্টে যদি কোন সমস্যা থাকে আপনি যদি যে কোন সমস্যা অনুভব করেন তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন। নতুন কিছু পেতে হলে আমাদের সঙ্গে থাকুন এবং আমাদের কমেন্ট বক্সে যোগাযোগ রাখুন। আপনাদের সকলকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

Updated: November 1, 2023 — 7:50 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *